সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০

ভারতে চিড়িয়াখানার বাঘেদেরও দেওয়া যাবে না গোমাংস!

ভারতে এবার জাতপাতের বেড়া উঠলো পশুদের খাবারেও। চিড়িয়াখানায় মাসাংশী পশুদের কোনভাবেই দেওয়া যাবে না গোমাংস। বাঘ সহ অন্যান্য পশুদের খাবারের ক্ষেত্রে এমনই নিষেধাজ্ঞা জারি করার দাবি জানিয়ে আন্দোলন করছে হিন্দু সমাজকর্মীরা।

সোমবার ভারতের গুয়াহাটিতে অসম স্টেট জু-এর সামনে এই বিষয়ে প্রতিবাদ দেখান হিন্দু সমাজকর্মীদের সংগঠন। বেশ কয়েক ঘন্টা তারা চিড়িয়াখানার সামনের রাস্তা অবরোধ করে রাখেন। অসম স্টেট জু-এর ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার তেজস মারিস্বামী জানান, চিড়িয়াখানায় যারা মাংস সরবরাহ করেন, তাদের গাড়ি আটকে রাখেন বিক্ষোভকারীরা। তারা কোন প্রাণীর মাংস নিয়ে যাওয় হচ্ছে তা জানতে চান। চিড়িয়াখানার মাংসাশী পশুদের যাতে গোমাংস দেওয়া না হয় তার প্রতিবাদ জানান তারা।

পরে চিড়িয়াখানার তরফে পুলিশে খবর দেওয়া হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তারপর ম্নগসের গাড়ি ঢোকে চিড়িয়াখানার ভিতরে। উল্লেখ্য, ১৯৫৭ সালে অসম স্টেট জু তৈরি হয়। যা উত্তর পূর্ব ভারতের সবথেকে বড়ো চিড়িয়াখানা বলে পরিচিত। গুয়াহাটির জিরো পয়েন্টে হেনগ্রাবাড়ি রিজার্ভ ফরেস্টের ১৭৫ হেক্টর জমি নিয়ে এই চিড়িয়াখানা।

এখানে রয়েছে, ১০৪০ টি জাতীয় বন্য পশু এবং ১১২ প্রজাতির পাখি। বর্তমানে এই চিড়িয়াখানায় রয়েছে ৮ টি বাঘ, ৩ টি সিংহ, ২৬ টি চিতাবাঘ সহ বেশ কিছু পশু পাখি। তবে ভারতের করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার কারনে গত মার্চ মাস থেকে বন্ধ রাখা হয়েছে চিড়িয়াখানাটি।

তবে এই চিড়িয়াখানায় যাতে মাংসাশী পশুদের গোমাংস দেওয়া না হয় তার দাবিতে এবার সোচ্চার হলো হিন্দুত্ববাদী সমাজকর্মীরা। তাদের দাবি, চিড়িখানার বাঘ সিংহ সহ সমস্ত মাংসাশী পশুদের গোমাংস দেওয়া যাবে না।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »

Translate »