রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০

শনিবারও জানা যাবে না বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার সিদ্ধান্ত

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত এ সভায় জানানো হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা কীভাবে হবে সে সিদ্ধান্ত শনিবার জানা যাবে। তবে ইউজিসি ও একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা জানান, শনিবার এ সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভব হবে না। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা কবে-কী পদ্ধতিতে হবে সেটার জন্য শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের আরো সময় অপেক্ষা করতে হবে।

বরাবরই গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা চায় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন। গতবছর মেডিকেল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়েও গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় একমত না হওয়ায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি রয়েই গেছে। এছাড়াও করোনা পরিস্থিতি এবং চলতি বছর এইসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত না হওয়ায় ও বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পর্কে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মধ্যে উৎকণ্ঠা বেড়েই চলেছে।

ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে আগামী রোববার আলোচনা করতে ডিনস কমিটির বৈঠক ডেকেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বলেন, আমাদের ভর্তি পরীক্ষার নিজস্ব স্বতন্ত্রতা রয়েছে। আমরা অবশ্যই সেটি বজায় রাখব। তবে ভর্তি পরীক্ষায় এসএসসি ও এইচএসসির যে নম্বর যুক্ত থাকে সে বিষয়েই বৈঠকে আলোচনা করা হবে। ভর্তি পরীক্ষার সকল সিদ্ধান্ত নিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক থেকে দেড় মাস সময় লাগতে পারে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

এ প্রেক্ষিতে ইউজিসি চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. শহীদুল্লাহ বলেন, সমগ্র জাতি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে একটি সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা চাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দরকার। তিনি বলেন, শনিবার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা আলোচনায় বসবেন। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হয়তো দেরি হবে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় স্বায়ত্তশাসিত ও তাদের নিজস্ব একাডেমিক কাউন্সিল আছে।

এর আগে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির বিষয়ে করণীয় ঠিক করতে বসে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। সেখানে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে নানা প্রস্তাব দেন। অনলাইন এই বৈঠকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হারুন অর রশিদ শিক্ষার্থীদের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্টের ওপর ভিত্তি করে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তাব দেন।

গুচ্ছ ভিত্তিক বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য মীজানুর রহমান ভর্তি পরীক্ষা সম্পর্কে বলেন, বিষয়টি নিয়ে বিশদ আলোচনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপাচার্যদের নিয়ে বসতে হবে। তবে নিরাপত্তা জনিত কারণে অনলাইনে সম্ভব না। তবে বিষয়টি এগিয়ে নেয়ার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »

Translate »